Monday, May 23, 2022
Homeকলকাতা'পাউরুটির জন্য হাহাকার করেছি, আজ অনেককে মদ-মাংস জোগাচ্ছি!' TMC বিধায়কের বিস্ফোরণ

‘পাউরুটির জন্য হাহাকার করেছি, আজ অনেককে মদ-মাংস জোগাচ্ছি!’ TMC বিধায়কের বিস্ফোরণ


#কলকাতা: ‘মনে হচ্ছে রাজনীতিতে এসে ভুল করেছি’, দিন কয়েক আগে বলাগড়ের তৃণমূল বিধায়ক মনোরঞ্জন ব্যাপারীর (MANORANJAN BYAPARI) ফেসবুকে পোস্ট ঘিরে শোরগোল পড়েছিল। এমনকী বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বও। পরিস্থিতি দেখে কিছুদিনের জন্যে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে সরে থাকার কথা জানিয়েছিলেন বলাগড়ের তৃণমূল বিধায়ক। কিন্তু তারপরও ফেসবুকে মোটের উপর সক্রিয়ই রয়েছেন মনোরঞ্জন ব্যাপারী। আর সেই সূত্রেই রবিবার ফেসবুকে আরেকটি বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তিনি। রবিবার তিনি লিখেছেন, ‘এক সময় আমি সতেরো পয়সা দামের একটা পাউরুটির জন্য কত হাহাকার করেছি সেই আমি আজকাল অনেক জনের ভাত তো তুচ্ছ , মাংস মদের পর্যন্ত জোগান দিতে পারছি ভেবে পুলকিত হচ্ছি।’

আর তার এই পোস্টের পরই ফের শুরু হয়েছে বিতর্ক। যদিও ওয়াকিবহাল মহলের মতে, বারবার বিতর্কিত মন্তব্য করে বা প্রকাশ্য সভায় দলীয় নেতার থেকে খৈনি চেয়ে খেয়ে সংবাদমাধ্যমের নজরে পড়েছেন তিনি। আর তা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হওয়াতেই সংবাদমাধ্যমের একাংশের প্রতিও মনোরঞ্জন ব্যাপারীর ক্ষোভ জন্মেছে।

এদিনের পোস্টে তিনি আরও লিখেছেন, ‘আমি কেন আমানবিক উচ্চারণ করতে পারিনি, আমি কেন খইনি খাই, আমি কেন সুখ শয্যায় না শুয়ে গামছা বিছিয়ে আমগাছের ছায়ায় শুয়ে পড়েছি,আমি কেন দামি হোটেলে না খেয়ে মা ক্যান্টিনে লাইন দিয়ে “দিম্ভাত” খাই , এই সব নিয়ে খবর করে কিছু জন আজকাল বেশ তেলে ঝোলে থাকছে।’

এরপরই সরাসরি সংবাদমাধ্যমের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলাগড়ের তৃণমূল বিধায়ক লেখেন, ‘আমি ভেবে পাইনা মানুষের কত সমস্যা সে গুলো কী এদের চোখে পড়ে না? পেট্রল ডিজেলের দাম আকাশ ছুতে চলেছে ,যার ফলে সমস্ত জিনিসের দাম বাড়ছে,প্রায় আট মাস রোদ শীত বৃষ্টি উপেক্ষা করে লক্ষ লক্ষ অন্নদাতা কৃষক দিল্লির রাস্তায় বসে আছে সে নিয়ে সংবাদ মাধ্যম নীরব । সময় নেই এদের সে দিকে চোখ ফেরাবার। এরা ক্যামেরা নিয়ে ঘুরছে আমি কখন কার কাছে হাত পেতে খৈনি চেয়ে নেবো তেমন ছবি তোলবার চেষ্টায়। সাবাস,এই তো চাই।চালিয়ে যাও ভাই।এই ভাবে “একদিন ক্রমমুক্তি” হবে।’ (বানান অপরিবর্তীত)

প্রসঙ্গত, দিন কয়েক আগে তাঁর একটি ফেসবুক পোস্টের শুরুতেই ছিল রাজনীতিতে এসে ঠিক করেননি। তিনি হাঁফিয়ে উঠেছেন। আসলে তিনি বোঝাতে চেয়েছিলেন, জনপ্রতিনিধি হিসাবে মানুষের আর্তি তাকে ভীষণ কষ্ট দিচ্ছে। কত মানুষের, কত চাহিদা। সবার প্রত্যাশা পূরণ করা একটা চ্যালেঞ্জ হয়ে গিয়েছে। এই বিষয় নিয়েই তিনি সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেছিলেন। কিন্তু তা নিয়ে ‘অন্য রকম’ আলোচনা শুরু হয়। এরপর ফের খৈনি চেয়ে প্রকাশ্যে বিতর্ক তৈরি করেন তিনি। আর সেই প্রতিটি পর্বই সংবাদমাধ্যমে সামনে আসায় এবার সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধেই সুর চড়ালেন তিনি।



Source link

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments